ট্যাবলেট ভেঙে খেলে কি হয় জানেন ?

অনেক সময় দেখা যায় ওষুধের ডোজ বুঝে চিকিত্সকরা ট্যাবলেট অর্ধেক, এক-চতুর্থাংশ করে খাওয়ার পরামর্শ দেন।  ট্যাবলেট ভেঙে খাওয়ার আরেকটি কারণ হল কমমাত্রার চেয়ে বেশি মাত্রার ট্যাবলেটগুলো তুলনামূলক সাশ্রয়ী। অর্থাত্ ৫০ মিলিগ্রামের কোনও ট্যাবলেটের ১০টির স্ট্রিপের দাম যদি ১০০ টাকা হয়, সেই একই ট্যাবলেটের ১০০ মিলিগ্রাম মাত্রার ১০টির স্ট্রিপের দাম হয় তো দেখা যায় ১৫০ টাকা একই ওষুধের বেশি ডোজের দাম বেশি হওয়ার কারণে অনেক রোগী বা রোগীর অভিভাবক নিজে থেকেই বেশি মাত্রার ওষুধ কিনে তা ভাগ করে খেয়ে অর্থ সাশ্রয়ের চেষ্ট করে থাকেন। তাতেই বিপদ বলছেন গবেষকরা। তাঁদের দাবি,ট্যাবলেট দু ভাগ বা তার বেশি ভাগ করে খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে দেখা দিতে পারে।

Image Source – https://www.addiction-ssa.org

চিকিত্সকের পরামর্শ মতে বা অর্থ সাশ্রয়ের জন্য নির্দিষ্ট কোনও ট্যাবলেট ভাগ করে খাচ্ছেন, সেই ডোজটিই আপনার জন্য বাড়তি বিপদ ডেকে আনতে পারে বলে সাবধান করে দিয়েছেন বেলজিয়ামের গোঁত বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্টিস্ট শার্লো ভেরু ও তাঁর সহকর্মী গবেষকরা। যেগুলোর উপাদানে বিষের ব্যবহার হয় প্রতিষেধক হিসেবে, সেইসব ট্যাবলেট গ্রহণের ক্ষেত্রে এই সমস্যা মারাত্মক পরিণতি ডেকে আনতে পারে।

Image Source – http://www.liveyourlifemore.com

ট্যবলেট ভেঙে খাওয়া কেন উচিত্ নয়-

ট্যাবলেটের টুকরাগুলো প্রায় ক্ষেত্রেই পরস্পর সমান ভাগে ভাগ হয় না বা আপনার ইচ্ছানুযায়ী সাইজে বিভক্ত হয় না। গবেষণায় দেখা গেছে,  উন্নত বিশ্বে প্রচলিত ট্যাবলেট কাঁচি, রান্নঘরের সবজি কাটার ছুরি দিয়ে ভাগ করা হয়। ফলে ট্যাবলেটের শতকরা ৩১ ভাগই সঠিক মাপে বিভক্ত হয় না। দেখা গেছে, ভাঙা ট্যাবলেট খণ্ডগুলোর ওজন একটার থেকে অন্যটা কমপক্ষে ১৫% কম বা ২৫%এরও বেশি হয়ে থাকে।

Image Source – https://madamasr.com

ট্যাবলেট ভাঙাবিষয়ে গবেষণাটি চালানো হয়েছে যেসব রোগের ওষুধের ক্ষেত্রে তার মধ্যে অন্যতম হলো – পারকিনসন্স, রক্তচাপজনিত হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হওয়া, রক্তনালি বা হৃদপিণ্ডে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়া এবং গ্রন্থিবাত ও গাঁটেবাত।বিশেষজ্ঞরা ট্যাবলেট ভেঙে খাওয়ার ফলে রোগীদের বিপদে পড়া থেকে বাঁচাতে ওষুধ কোম্পানিগুলোকে প্রতিটি ট্যাবলেট একাধিক মাত্রায় বাজারে ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এতে করে রোগী এবং চিকিত্সকদের যার যার পছন্দমতো মাত্রায় ওষুধ প্রেসক্রাইব করা এবং খাওয়ায় আর কোনও ঝামেলা থাকবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: